‘মোদিকে ঠেকাতে পারেন দিদি’, অধীরের মুখে মমতার প্রশংসায় চাঞ্চল্য রাজনৈতিক মহলে

তিনি তৃণমূল নেত্রীর ঘোর বিরোধী হিসাবে পরিচিত। তবে এবার যেন উল্টোসুর। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রশংসা করলেন অধীর চৌধুরী৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে হারানোর ক্ষমতা রাখেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এমনই মনে মনে করেন অধীর৷ শনিবার কলকাতার বিধান ভবনে এক সাংবাদিক বৈঠকে তিনি এই মত প্রকাশ করেন তিন। একই সঙ্গে তিনি এটাও স্পষ্ট করেছেন যে, এই বিশ্বাস রয়েছে বাংলার মানুষের ৷ তাই এবারের বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস দারুণ ফল করেছে।

বিধানভবনে বসে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী বলেন, ‘‘এই মুহুর্তে মোদিকে ঠেকাতে পারেন দিদি৷ কংগ্রেস, সিপিএম নিশ্চয় ধর্মনিরেপেক্ষ৷ কিন্তু এই মুহূর্তে রণকৌশলগত ভাবে ভোট দিয়ে মোদিকে হারাতে হবে৷ মুসলিমরা ভোট দিয়েছে বিজেপি নামক সাম্প্রদায়িক দলকে ঠেকাতে৷ সেদিন তারা মনে করেছিল বিজেপিকে ঠেকাতে দিদি সেরা বিকল্প৷ তাই দিদিকে সমর্থন করেছে৷’’

বর্তমানে জাতীয় রাজনীতির প্রেক্ষাপটে কংগ্রেস হল বিজেপির প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী দল৷ গত কয়েক বছরে রাহুল গান্ধিকেই মোদি বিরোধী মুখ হিসেবে দেখিয়েছে কংগ্রেস। তবে তাতে কংগ্রেস তেমন একটা সুবিধা করতে পারেনি। বরং লোকসভা ভোটের হিসাবে গোটাদেশেই শক্তি কমেছে সোনিয়া গান্ধীর দলের। এই অবস্থায় বেশকিছু বিরোধী নেতা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মুখ করে মোদির বিরুদ্ধে রণকৌশল সাজাতে চাইছে। ২০২৪ সালে দিল্লির মসনদ থেকে নরেন্দ্র মোদিকে উৎখাত করতে এখন থেকেই মমতাকে কেন্দ্র করে বিরোধীরা দানা বাঁধতে শুরু করেছে। এরই মধ্যে অধীরের মমতাকে প্রশংসা এক আলাদা তাৎপর্য বহন করে।

হ্যাঁ, আমি অনুদান দিতে ইচ্ছুক

    You May Like this Article
 

You May Like

‘নিজের নাক কেটে পরের যাত্রা ভঙ্গ করেছে বিজেপি কর্মী’, বিস্ফোরক শুভেন্দু
তৃণমূল প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি বলেই হেরেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা: শুভেন্দু
ঠাঁই নেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়, রাজ্য যুব মোর্চার পদ থেকে ইস্তফা সৌমিত্রর
‘মানুষ বোকা নয়’, যশ-শ্রাবন্তী-পায়েলকে নিয়ে সমালোচনায় বিজেপি নেত্রী কাঞ্চনা
মুখে লিউকোপ্লাস্ট লাগিয়ে বসে থাকুন, বিরোধীদের তীব্র কটাক্ষ জ্যোতিপ্রিয় র
আজ থেকে অধিবেশন, ভেবে চিন্তে আপাতত পদ্ম সারিতেই বসবেন মুকুল
হোয়াটসঅ্যাপ এর বার্তা ফাঁস করে ষড়যন্ত্রর প্রমাণ দিলেন দেবাংশু !
‘রাজ ভবনে কেন দেবাঞ্জনের দেহরক্ষী?’রাজ্যপালের সঙ্গে ছবি প্রকাশ করে তোপ তৃণমূলের
‘পরকীয়া’য় বেশি মন রাজ্যপালের, বিতর্কিত দাবি মদন মিত্রের
ভোটার সংখ্যা ৬৭৬, কিন্তু ভোট পড়ল ৭৯৯! নন্দীগ্রামের নথি নিয়ে তোলপাড় রাজ্য