৬ মাসের মধ্যে উপ-নির্বাচন না হলেও মুখ্যমন্ত্রী কী থাকবেন মমতা!

৬ মাসের মধ্যে উপ-নির্বাচন না হলেও মুখ্যমন্ত্রী থাকবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়? প্রশ্ন ঘুরছে রাজনৈতিক মহলে। রাজ্যজুড়ে বিপুল ভাবে তৃণমূল জিতলেও নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারীর কাছে সামান্য ভোটের ব্যাবধানে পরাজিত হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে সেই জয়-পরাজয় প্রশ্নহীন নয়। হাইকোর্টে মামলাও হয়েছে নন্দীগ্রামের ভোট গণনা ইস্যুতে। এদিকে নির্বাচন কমিশনের ঘোষণা অনুযায়ী নন্দিগ্রামের বিধায়ন শুভেন্দু অধিকারী। তাই মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে থাকতে গেলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শপথ নেওয়ার ৬ মাসের মধ্যে নির্বাচন জিতে বিধায়ক হতে হবে।কিন্তু যদি নির্বাচন না করানো যায় করোনা পরিস্থিতিতে? এই প্রশ্ন উঠছে অনেকের মধ্যেই। এদিকে মুখ্যমন্ত্রীও সুর চড়িয়েছেন দ্রুত উপ নির্বাচন করানোর পক্ষে। তাঁর মতে যেখানে ৮ দফায় নির্বাচন হয়েছে, সেখানে এই মুহুর্তে এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে, এখন ১ দিনের সময় দিয়ে বাই-ইলেকশন করালে বেশি প্রভাব পড়বে না রাজ্যে। সঙ্গে তিনি জানান ভোটের পরে রাজ্যে কোভিড পজিটিভের পরিমাণ ছিল ৩৩ শতাংশ, সেই পিক এরিয়া কাটিয়ে এই মুহুর্তে রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে, এখন ৩.৬১ শতাংশতে।

উল্লেখ্য, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিয়েছেন গত ৫ মে। তারপর থেকে ৬ মাস অর্থাৎ ৪ নভেম্বর। অর্থাৎ ইতিমধ্যেই ২ মাস অতিবাহিত হতে চলেছে। নির্বাচন করাতে হবে আগামী ৪ মাসের মধ্যেই। অন্যদিকে রাজ্যে ১১২টি পুরসভার নির্বাচনও বাকি রয়েছে। কলকাতা, হাওড়া, আসানসোল, শিলিগুড়ি, বিধাননগর ও চন্দননগর কর্পোরেশনেরও মাথায় বসে রয়েছেন প্রশাসকরা। রাজ্যে নির্বাচন কমিশন কবে পুরসভার নির্বাচন করবে তা নিয়েও কোনও ঘোষণা করা হয়নি।৬ মাসের মধ্যে উপ-নির্বাচন না হলেও মুখ্যমন্ত্রী থাকবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ১৯৫১ সালের জনপ্রতিনিধিত্ব আইন অনুযায়ী ৬ মাসের মধ্যে উপনির্বাচন করার দায়িত্ব নির্বাচন কমিশিনের। তবে মন্ত্রীপদে শপথ নিয়েছে অথচ ৬ মাসের মধ্যে উপনির্বাচন হয়নি, এমন পরিস্থিতি কখনও হয়নি দেশে। আর যদি নির্বাচন নাও হয় তাহলেও মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে থাকতে পারবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সেক্ষেত্রে সমসীমা শেষ হয়ে যাওয়ার পর পদত্যাগ করতে হবে মুখ্যমন্ত্রীকে। এবং তারপর পুনরায় শপথ নিতে হবে। যা পদত্যাগ করার কিছুক্ষনের মধ্যেই সম্ভব। অর্থাৎ ৬ মাসের মধ্যে উপনির্বাচন হোক বা না হোক মুখ্যমন্ত্রী থাকবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই।এদিকে উপনির্বাচন প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী কটাক্ষ করতে ছাড়েননি প্রধানমন্ত্রী এবং নির্বাচন কমিশনকে। গতকাল মমতা বলেন, ‘‘এখন তো পরিস্থিতি অনেকটাই ভাল। কমিশন চাইলে এখন ভোট করে নিতে পারে। আমি জানি, প্রধানমন্ত্রী বললেই কমিশন উপনির্বাচনের ঘোষণা করবে। আমি তাই প্রধামন্ত্রীকে উদ্যোগী হওয়ার অনুরোধ করব।’’

হ্যাঁ, আমি অনুদান দিতে ইচ্ছুক

    You May Like this Article
 

You May Like

‘নিজের নাক কেটে পরের যাত্রা ভঙ্গ করেছে বিজেপি কর্মী’, বিস্ফোরক শুভেন্দু
তৃণমূল প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি বলেই হেরেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা: শুভেন্দু
ঠাঁই নেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়, রাজ্য যুব মোর্চার পদ থেকে ইস্তফা সৌমিত্রর
‘মানুষ বোকা নয়’, যশ-শ্রাবন্তী-পায়েলকে নিয়ে সমালোচনায় বিজেপি নেত্রী কাঞ্চনা
মুখে লিউকোপ্লাস্ট লাগিয়ে বসে থাকুন, বিরোধীদের তীব্র কটাক্ষ জ্যোতিপ্রিয় র
আজ থেকে অধিবেশন, ভেবে চিন্তে আপাতত পদ্ম সারিতেই বসবেন মুকুল
হোয়াটসঅ্যাপ এর বার্তা ফাঁস করে ষড়যন্ত্রর প্রমাণ দিলেন দেবাংশু !
‘রাজ ভবনে কেন দেবাঞ্জনের দেহরক্ষী?’রাজ্যপালের সঙ্গে ছবি প্রকাশ করে তোপ তৃণমূলের
‘পরকীয়া’য় বেশি মন রাজ্যপালের, বিতর্কিত দাবি মদন মিত্রের
ভোটার সংখ্যা ৬৭৬, কিন্তু ভোট পড়ল ৭৯৯! নন্দীগ্রামের নথি নিয়ে তোলপাড় রাজ্য