এই সেই ছবি যে কারনে তৃণমূলের নেতা কর্মীদের মাথা ব্যাথা

বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর থেকেই অমিত শাহের সঙ্গে সৌরভের সাক্ষাতের খবর নিয়ে নানা জল্পনা তৈরি হয়। তখন থেকেই তাঁর বিজেপি-যোগের চর্চা শুরু হয়। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের শীর্ষপদে তাঁর বসার নেপথ্যে যে বিজেপির হাত রয়েছে, তা স্পষ্ট।ভারতের প্রখ্যাত ক্রিকেটার সৌরভ গাঙ্গুলীর রাজনীতিতে যোগদান নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে জল্পনা এখন তুঙ্গে।  ইতিমধ্যেই কলকাতায় একটি স্কুল গড়ার জন্য রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতার দেওয়া দুই একর জমি ফিরিয়ে দিয়েছেন সৌরভ।

জমি ফেরত দেওয়ার পর রাজ্যজুড়ে  জল্পনা শুরু হয়েছে, তবে কি সৌরভ রাজনীতির আঙিনায় পা দিচ্ছেন? রাজনীতিতে পা দিলেও তিনি কোন দলে যাবেন, তা অবশ্য এখনো স্পষ্ট হয়নি। তবে রাজ্যে যে জল্পনার হাওয়া চলছে, তাতে মনে করা হচ্ছে, সৌরভ যোগ দিতে পারেন বিজেপিতে।  কেননা সম্প্রতি ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়ামে অরুন জেটলির মূর্তি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে অমিত শাহের পাশে একই মঞ্চে ছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলি। আর সেই ছবি ইতিমধ্যে  ভাইরাল হয়েছে।

যা তৃণমূলের নেতা কর্মীদের মাথা ব্যাথার কারন হয়েছে। তারা ধরেই নিচ্ছেন যে সৌরভ গাঙ্গুলি বিজেপিতে যোগদান করছেন। আর সেই কারনেই অনেক তৃণমূল সমর্কেরা সৌরভের নামে কুৎসা করারও হুমকি দিচ্ছেন। তারা লিখছেন, আসলে দাদাগিরিটা খেলার মাঠেই ভালো লাগে, বাংলার রাজ্য রাজনীতি তে না। বাংলায় একজন মহিলাই শেষ “দিদিগিরি” করে আসছেন গত ২২ বছর ধরে। আর তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এর পাশাপাশি সেখানে লেখেন রাজা, মহারাজা এসব কিছুই তারা বোঝেন না।
 

হ্যাঁ, আমি অনুদান দিতে ইচ্ছুক

    You May Like this Article
 

You May Like

‘নিজের নাক কেটে পরের যাত্রা ভঙ্গ করেছে বিজেপি কর্মী’, বিস্ফোরক শুভেন্দু
তৃণমূল প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি বলেই হেরেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা: শুভেন্দু
ঠাঁই নেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়, রাজ্য যুব মোর্চার পদ থেকে ইস্তফা সৌমিত্রর
‘মানুষ বোকা নয়’, যশ-শ্রাবন্তী-পায়েলকে নিয়ে সমালোচনায় বিজেপি নেত্রী কাঞ্চনা
মুখে লিউকোপ্লাস্ট লাগিয়ে বসে থাকুন, বিরোধীদের তীব্র কটাক্ষ জ্যোতিপ্রিয় র
আজ থেকে অধিবেশন, ভেবে চিন্তে আপাতত পদ্ম সারিতেই বসবেন মুকুল
হোয়াটসঅ্যাপ এর বার্তা ফাঁস করে ষড়যন্ত্রর প্রমাণ দিলেন দেবাংশু !
‘রাজ ভবনে কেন দেবাঞ্জনের দেহরক্ষী?’রাজ্যপালের সঙ্গে ছবি প্রকাশ করে তোপ তৃণমূলের
‘পরকীয়া’য় বেশি মন রাজ্যপালের, বিতর্কিত দাবি মদন মিত্রের
ভোটার সংখ্যা ৬৭৬, কিন্তু ভোট পড়ল ৭৯৯! নন্দীগ্রামের নথি নিয়ে তোলপাড় রাজ্য