মিশন ব্যার্থ হওয়ায় কংগ্রেস আমলে জেল খেটেছিলেন এই মহান বিজ্ঞানী

নিজস্ব প্রতিবেদন: কংগ্রেসের ভুলের কারনে মহাকাশ গবেষণায় ইতিমধ্যে ভারত ২০ বছর পিছিয়ে।কেন জানেন ? আসি সেই ঘটনায় , আজকে যে বাহুবলী রকেট GSLV MK-III র মাধ্যমে চন্দ্রযানের পুরো উপকরন গুলো কে চাঁদে পাঠানো হয়েছিল সেই ক্রায়োজেনিক ইঞ্জিনের মুল গবেষক ছিল আরেক জন মহান ইসরো বিজ্ঞানী  নাম্বি নারায়নন । এই মহান বৈজ্ঞানিক পড়াশুনা শেষ করার পর নাসার ফেলোশিপ পান।

তবে তিনি নাসার লোভনীয় প্রস্তাব ছেড়ে দেশের সেবায় ইসরোর সঙ্গে যুক্ত হন। তিনি ভারতে উচ্চাকাঙ্খী প্রজেক্ট ক্রাইয়োজেনিক ইঞ্জিন ডেভেলাপম্যান্টের কাজ শুরু করেন। এই ইঞ্জিন প্রযুক্তি ডেভেলাম্যান্ট যখন একেবারে শেষ পর্যায়ে তখনি ঘটে যায় এক বিপত্তি, আর সেই সময় তৎকালীন কংগ্রেস সরকার মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে নাম্বি নারায়ননকে জেলে পাঠায় ।পুলিস কাস্টোডিতে একমাস ধরে প্রচন্ড অত্যাচার চালানো হয় তার উপর। কিন্তু কোন অভিযোগই প্রমান হয়নি। দীর্ঘ ২০ বছর  পর অবশেষে সুপ্রিম কোর্ট থেকে ক্লিন চিট পান তিনি।

ফলে কার্যত ক্রাইয়োজেনিক ইঞ্জিন প্রযুক্তি ডেভেলাপম্যান্টের কাজ ২০ বছর পিছিয়ে যায় ভারত।পরবর্তী ক্ষেত্রে মোদি সরকার মহান ইসরো বিজ্ঞানী  নাম্বি নারায়ননকে  পদ্মভূষন পুরষ্কার প্রদান করেন কিন্তু তত দিনে মানসিকভাবে সম্পূর্ন ভেঙে পড়েন তিনি। তার পুরো ক্যারিয়ার নষ্ট হয়। সেই সাথে মহাকাশ গবেষনায় 20 বছর পিছিয়ে যায় ভারত।তবে চন্দ্রযান ২ তে দেখা গেল ভিন্ন চিত্র।বিক্রম ল্যান্ডারের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার পর ইসরো চেয়ারম্যান কে সিভানের চোখের জল দেখে 130 কোটি ভারতবাসী সেদিন কেঁদে ছিল।এমনকি ইসরো চেয়ারম্যানের সাথে সহমর্মিতা জানানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী তাকে জড়িয়ে ধরে সান্তনা দিয়েছিলেন।