অভিষেককে চড় মারা যুবকের রহস্যমৃত্যু, অভিযোগ তৃণমূলের দিকে

ছয় বছর আগে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে চড় মেরেছিলেন তিনি। সেই যুবকের রহস্যমৃত্যু হল। এরপরে চাঞ্চল্য ছড়াল পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুকে। ওই যুবকের মৃত্যুর কারণ নিয়ে উঠতে শুরু করেছে একাধিক প্রশ্ন। ২০১৫ সালের ৫ জুলাই চণ্ডীপুরে সভা ছিল অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। সেই সময় যুব নেতার সঙ্গে ছবি তোলার নাম করে মঞ্চে উঠে অভিষেককে চড় মেরেছিলেন ওই যুবক।

তার এই আচরণের জন্য ওই যুবক ও তাঁর বাবা-মা ক্ষমাও চেয়েছিলেন। ওই যুবকের নাম দেবাশিস আচার্য। পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুকের বাসিন্দা। এই বিষয়ে তাঁর এক বন্ধু জানিয়েছেন, বুধবার সন্ধেয় একসঙ্গেই ছিলেন তাঁরা। হঠাৎ একজনের সঙ্গে দেখা করার কথা বলে চলে যান দেবাশিস। দ্রুত ফিরে আসবে বললেও আর আসেননি। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে যে যার বাড়ি ফিরে যান। গোটা রাত পেরিয়ে গেলেও বাড়ি ফেরেননি দেবাশিস। বৃহস্পতিবার সকালে ৪১ নম্বর জাতীয় সড়কের সোনাপাটিয়া টোল প্লাজার কিছুটা দূরে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় উদ্ধার হয় ওই যুবক। তড়িঘড়ি তাঁকে উদ্ধার করে তমলুক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসা শুরুর কিছুক্ষণের মধ্যেই মৃত্যু হয় ওই যুবকের।

তাঁর দেহে একাধিক আঘাতের চিহ্ন ছিল বলে জানা গেছে। ইতিমধ্যে বিজেপি ও মৃতার পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ করেছেন, ঘটনার নেপথ্যে রয়েছে তৃণমূল। আবশ্য এই ঘটনায় তদন্ত দাবি করছে তৃণমূলও। স্থানীয় এক তৃণমূল নেতার কথায়, “অনুমান করা হচ্ছে খুন করা হয়েছে। কে এই ঘটনার পিছনে রয়েছে। কী কারণে তাঁকে খুন করা হয়েছে। আদৌ খুন কি না, গোটা বিষয়টি তদন্ত করে দেখা প্রয়োজন।” যদিও প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশ জানিয়েছেন, সম্ভবত দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ওই যুবকের। তবে ঠিক কী কারণে মৃত্যু তা ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে আসার পরই স্পষ্ট হবে।

হ্যাঁ, আমি অনুদান দিতে ইচ্ছুক

    You May Like this Article
 

You May Like

ঠাঁই নেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়, রাজ্য যুব মোর্চার পদ থেকে ইস্তফা সৌমিত্রর
হোয়াটসঅ্যাপ এর বার্তা ফাঁস করে ষড়যন্ত্রর প্রমাণ দিলেন দেবাংশু !
‘রাজ ভবনে কেন দেবাঞ্জনের দেহরক্ষী?’রাজ্যপালের সঙ্গে ছবি প্রকাশ করে তোপ তৃণমূলের
১৫০টির বেশি পরিবারের হাতে ত্রান তুলে দিলেন শালতোড়ার বিধায়ক চন্দনা বাউড়ি
পাগল ছাড়া মুখ্যমন্ত্রী মমতাকে কেউ বিশ্বাস করেননা - মমতাকে ফের আক্রমণ দিলীপের
‘কালো কুকুর চিৎকার করে’, ধনখড় প্রসঙ্গে বিতর্কিত মন্তব্য মদন মিত্রের
"কে সুজাতা? কোনো স্ট্যান্ডার্ড নেই। পাগলের মত সবসময় বকে যায়।"-বৈশাখী
‘আমরা কর্মীদের নিরাপত্তা দিতে পারছিনা, তাই দল ছেড়ে যাচ্ছে’ : দিলীপ
কালিয়াচক কাণ্ডে নয়া মোড়! ক্রমশ রহস্য ঘনীভূত হচ্ছে
বাংলায় চাকরি নেই, তাই মানুষ গুজরাত-মহারাষ্ট্রে ছুটছে: দিলীপ