বিজেপি কর্মীর মৃতদেহ চুরি করেছে মমতা ব্যানার্জী, বিস্ফোরক মুকুল

নিজস্ব প্রতিবেদন: দমদম বিমানবন্দরে দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ‘বিস্ফোরক’ মন্তব্য করলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়।তিনি বলেন, এ রাজ্যে এখন পুলিস রাজ চলছে। কোনও গণতন্ত্র নেই। গণতন্ত্রকে হত্যা করা হচ্ছে। কোনও মানুষের মৃত্যু হলে, আইন অনুযায়ী তাঁর দেহ পরিবারের হাতে তুলে দিতে হয়। এখানে দেখলাম, পুলিস দেহ নিয়ে পালিয়ে গেল তাও আবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে।

একই সঙ্গে তিনি বলেন, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রাজ্যের ৩ জায়াগায় গুলি চলল। সারা বাংলা জুড়ে অরাজকতা চলছে। পুলিসমন্ত্রী হিসেবে ব্যর্থ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অবিলম্বে তাঁর স্বরাষ্ট্র দফতর থেকে পদত্যাগ করা উচিত।ঘটনার সূত্রপাত ৬ তারিখ, নানুরের রামকৃষ্ণ গ্রামে বিজেপির পতাকা লাগানোকে কেন্দ্র করে তৃণমূল ও বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে বচসা শুরু হয় । সেই বচসা-ই পরবর্তীতে রূপ নেয় সংঘর্ষে।  ব্যাপক বোমাবাজি চলে দুপক্ষের মধ্যে। সংঘর্ষের সময়ই বিজেপি কর্মী স্বরূপ গড়াইকে লক্ষ্য করে গুলি করা হয়। গুলি লাগে স্বরূপ গড়াইয়ের পাঁজরে।সঙ্গে সঙ্গেই তাঁকে আশঙ্কাজনক অবস্থায়  প্রথমে বোলপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

পরে তাঁকে সেখান থেকে  বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়। শেষে চিকিৎসার জন্য কলকাতায় নিয়ে আসা হয়েছিল । কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। রবিবার রাতে মৃত্যু হয় তার।এরপর থেকেই চলতে থাকে মৃতদেহ নিয়েটানাপোড়েন।  স্বরূপ গড়াইয়ের দাদা অনুপ গড়াইেয়র অভিযোগ, ‘হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে বলেছিলাম মঙ্গলবার হাসপাতালে বডি নিতে যাব। কিন্তু পরেজানতে পারছি পুলিস রাতেই বডি নিয়ে চলে গিয়েছে। প্রশাসনের তরফে কিছু জানানো হয়নি। বিজেপির দাবি, দেহ চুরি করেছে পুলিস। এই অভিযোগে হাইকোর্টে মামলা করতে চলেছে তারা। অন্যদিকে পুলিসের দাবি, পরিবার দেহ নিতে অস্বীকার করায় তা বোলপুর মর্গেই পড়ে রয়েছে।