ফেসবুক লাইভে বলেন মদনবাবু,’সেই মদন মিত্রকে আর পাবেন না’, কিন্তু কেন?

অভিমানী মদন। দিদির বকা খেয়ে মদনের উত্তর, “এদিন আজি কোন ঘরে গো খুলে দিল দ্বার…আজি প্রাতে সূর্য ওঠা সফল হল কার….কাহার অভিষেকের তরে, সোনার ঘটে আলোক ভরে, উষা কাহার।” আবেগমথিত মদন অবশ্য ফের সোশ্যাল মিডিয়ায় সক্রিয়। যদিও সোশ্যাল মিডিয়ায় আগামীকাল থেকে তিনি আর আগের মতো সক্রিয় থাকবেন না বলেই জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, এদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় দলের কর্মীদের কr ভূমিকা থাকা উচিত, তা জানিয়ে দিয়েছেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। উল্লেখ্য, গতকাল রাতে কামারহাটির প্রশাসকদের নিয়ে মদন মিত্র একটা ফেসবুক লাইভ করেন। তা নিয়ে রীতিমতো শোরগোল পড়ে যায়৷ এর পরেই তৃণমূল ভবনে ডেকে পাঠানো হয় মদন মিত্রকে। সেখানেই মদনকে ফেসবুকে সাবধান হতে বলা হয়৷ তারপরে ফের সোশ্যাল মিডিয়ায় সক্রিয় মদন। কী বললেন তিনি! “আমি দোলের পার্টিতে যাই। আমি ওহ লাভলির পার্টিতেও যাই। কিন্তু আমি মদন মিত্র কাউকে ছেড়ে যাই না। আমার এই একটা গুণ নেই৷ আমি চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যের সঙ্গে একমত। আমার ফেসবুক লাইভ এত লোক দেখে যে আমি একটা স্ট্যান্ডার্ড মেইন্টেন করি। আমি বরাবর প্রথম হয়েছি। আমার বউ আমাকে কোন দিন ছেড়ে বাপের বাড়ি যায়নি। কারণ গিয়ে দেখবে ওর আগে আমি গিয়ে বসে আছি। নয়তো নতুন বউ এসে বসে আছে। আমি ঝান্ডা, দল, নেত্রী পাল্টাইনি৷ ২২ মাস জেলে ছিলাম। মমতা-অভিষেক আর কামারহাটি আমার পাশে না থাকলে আমি বাঁচতাম না।”

তবে কি দিদির বকুনি খেয়ে অভিমান হল মদন মিত্রের! সেসব নিয়ে তিনি কিছু বললেন না। তবে বললেন, ”এক গুরুর শিষ্য, আরেক শিষ্যের ক্ষতি করতে পারে না। কালকের মিটিং ডাকছো কিনা আমায় জানিও। প্রশাসক তার কাজ করবে, এম এল এ তার কাজ করবে৷ গোপাল তুমি যে চেয়ারম্যান হয়েছো, তোমার কাউন্সিলরদের বলে দিও আমি যতদিন বেঁচে আছি কারও ক্ষমতা হবে না তোমায় কিছু করার। আমি হিংসুটে নই, আমি ঝগড়ুটে। কিন্তু আমি ক্ষতি করি না। তুমি প্রশাসক থাকবে। তবে আজ কিন্তু কোনও প্রশাসককে ডাকেনি মিটিংয়ে।”

হ্যাঁ, আমি অনুদান দিতে ইচ্ছুক

    You May Like this Article
 

You May Like

ঠাঁই নেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়, রাজ্য যুব মোর্চার পদ থেকে ইস্তফা সৌমিত্রর
হোয়াটসঅ্যাপ এর বার্তা ফাঁস করে ষড়যন্ত্রর প্রমাণ দিলেন দেবাংশু !
‘রাজ ভবনে কেন দেবাঞ্জনের দেহরক্ষী?’রাজ্যপালের সঙ্গে ছবি প্রকাশ করে তোপ তৃণমূলের
১৫০টির বেশি পরিবারের হাতে ত্রান তুলে দিলেন শালতোড়ার বিধায়ক চন্দনা বাউড়ি
পাগল ছাড়া মুখ্যমন্ত্রী মমতাকে কেউ বিশ্বাস করেননা - মমতাকে ফের আক্রমণ দিলীপের
‘কালো কুকুর চিৎকার করে’, ধনখড় প্রসঙ্গে বিতর্কিত মন্তব্য মদন মিত্রের
"কে সুজাতা? কোনো স্ট্যান্ডার্ড নেই। পাগলের মত সবসময় বকে যায়।"-বৈশাখী
‘আমরা কর্মীদের নিরাপত্তা দিতে পারছিনা, তাই দল ছেড়ে যাচ্ছে’ : দিলীপ
কালিয়াচক কাণ্ডে নয়া মোড়! ক্রমশ রহস্য ঘনীভূত হচ্ছে
বাংলায় চাকরি নেই, তাই মানুষ গুজরাত-মহারাষ্ট্রে ছুটছে: দিলীপ