‘”আমি আপনাদের সবচেয়ে বড় পাহারাদার আর কেন্দ্র সরকার সবচেয়ে বড় অপদার্থ”

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আচড়ে পড়েছে বাংলাতেও। রেকর্ডহারে সংক্রমণ বাড়ছে রাজ্যে। এই পরিস্থিতিতে বঙ্গবাসীকে আশ্বস্ত করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার বালুরঘাটে নির্বাচনী সভা থেকে মমতার অভয়বাণী, ‘আপনাদের কোনো কিছু হওয়ার আগে যেন আমার হয়। আমি আপনাদের সবচেয়ে বড় পাহারাদার। আমি ঘুরে ঘিরে বেড়াচ্ছি।’

উল্লেখ্য, গত বছর যখন করোনা হানা দেয়, সে সময়ও সামনের সারিতে থেকে করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে দেখা গিয়েছিল মুখ্যমন্ত্রীকে। কীভাবে দূরত্ববিধি মেনে চলতে হবে, তা বোঝাতে রাস্তায় ঢিল দিয়ে দাগ কেটে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এমনকী, করোনাকালে শহরের বিভিন্ন প্রান্তে গিয়ে মাইকিং করতেও দেখা গিয়েছিল মমতাকে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে যখম কাঁপছে বাংলা, তখনও বঙ্গবাসীকে যেভাবে আশ্বস্ত করলেন মমতা, তা তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

এদিন বালুরঘাটের সভায় মমতা বলেন, ‘চিন্তা করবেন না। সবাইকে যে হাসপাতালে ভর্তি হতে হবে তার কোনও কারণ নেই।’ তিনি আরও বলেন, ‘করোনা আক্রান্তরা ভোটটা নষ্ট করবেন না। জেনে নেবেন, কখন ভোট, সে সময় গিয়ে দেবেন ভোট।’

অন্যদিকে, করোনা পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে কড়া ভাষায় আক্রমণ শানালেন মমতা। এদিন তৃণমূল সুপ্রিমো বলেন, ‘বলেছিল করোনা চলে গিয়েছিল। তাহলে হল কী করে! অপদার্থ কেন্দ্র সরকার। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছিলেন কোভিড চলে গিয়েছে। আগে থেকে পরিকল্পনা করে না। নির্বাচনের সময় বাংলায় লাখ লাখ লোক ছেড়েছে, যারা কোভিড ছড়াচ্ছে। গুন্ডামি করছে আর রোড ছড়াচ্ছে। এখন বলছে জনগণ ঠিক করবে, এটা মোদী মেড বিপর্যয়।সারা দেশে ওষুধ নেই, ইঞ্জেকশন নেই। সব বিদেশে পাঠিয়ে দিয়েছে। দেশে অক্সিজেন নেই, ওষুধ নেই, হাহাকার চলছে।’

হ্যাঁ, আমি অনুদান দিতে ইচ্ছুক

    You May Like this Article
 

You May Like

‘নিজের নাক কেটে পরের যাত্রা ভঙ্গ করেছে বিজেপি কর্মী’, বিস্ফোরক শুভেন্দু
তৃণমূল প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি বলেই হেরেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা: শুভেন্দু
ঠাঁই নেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়, রাজ্য যুব মোর্চার পদ থেকে ইস্তফা সৌমিত্রর
‘মানুষ বোকা নয়’, যশ-শ্রাবন্তী-পায়েলকে নিয়ে সমালোচনায় বিজেপি নেত্রী কাঞ্চনা
মুখে লিউকোপ্লাস্ট লাগিয়ে বসে থাকুন, বিরোধীদের তীব্র কটাক্ষ জ্যোতিপ্রিয় র
আজ থেকে অধিবেশন, ভেবে চিন্তে আপাতত পদ্ম সারিতেই বসবেন মুকুল
হোয়াটসঅ্যাপ এর বার্তা ফাঁস করে ষড়যন্ত্রর প্রমাণ দিলেন দেবাংশু !
‘রাজ ভবনে কেন দেবাঞ্জনের দেহরক্ষী?’রাজ্যপালের সঙ্গে ছবি প্রকাশ করে তোপ তৃণমূলের
‘পরকীয়া’য় বেশি মন রাজ্যপালের, বিতর্কিত দাবি মদন মিত্রের
ভোটার সংখ্যা ৬৭৬, কিন্তু ভোট পড়ল ৭৯৯! নন্দীগ্রামের নথি নিয়ে তোলপাড় রাজ্য