জুন মাসে পাকিস্তানে করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাবে ২ কোটি

নিজস্ব প্রতিবেদন : সারা বিশ্ব যেখানে করোনা প্রতিরোধে পদক্ষেপ নিচ্ছে সেখানে পাকিস্তান কার্যত নিরব।যদিও পাকিস্তানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে।ইতিমধ্যে পাকিস্তানে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৮৭৮ জন। সেখানকার সরকার এখনও পর্যন্ত কোন রকম পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় সম্প্রতি একটি ভিডিও বার্তায় পাকিস্তানের প্রাক্তন ক্রিকেটার শোয়েব আখতার নিজের ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন।তিনি বলেছেন সারা বিশ্বজুড়ে করোনা প্রতিরোধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে , তবে কেন এখনও পাকিস্তানের সরকার কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না।

শুধু তাই নয় এমনকি তিনি পাকিস্তানে লকডাউনের পক্ষে সওয়াল করেন।এই লকডাউন প্রসঙ্গে তিনি ভারতের নাম করে বলেন ইতিমধ্যে ভারত সরকারও লকডাউন করে দিয়েছে। একইসঙ্গে তিনি নিজের দেশের জনগণের অসেচতনতার প্রতিও ক্ষোভ উগরে দেন এই ভিডিও বার্তায় । বলেন , কিভাবে মানুষ কোন সুরক্ষা ছাড়াই এদিক ওদিক ঘুরে বেড়াচ্ছে। কেউ কোন সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখছেন না । এ বিষয়েও তিনি পাকিস্তান সরকারকে নজর দিতে বলেন । শোয়েব আখতারের পাশাপাশি এদিকে পাকিস্তানের সচেতন মানুষও করোনার প্রকোপ নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন । তারা বলছেন যদি এখনই করোনা প্রতিরোধে সরকার কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করে তবে আগামী জুন মাস পর্যন্ত পাকিস্তানে করোনা আক্রান্তের রোগীর সংখ্যা দাড়াবে প্রায় দুই কোটি। যা সত্যি ভয়াবহ।

তবে কেন চুপ পাক সরকার ? ইতিমধ্যে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। জানা যাচ্ছে, করোনা চিকিৎসার জন্য পর্যাপ্ত পরিমানে চিকিৎসকের অভাব রয়েছে পাকিস্তানে, এমনকি নেই প্রয়োজনীয় উপকরণ।একদিকে যেমন পাকিস্তানের অর্থনীতির বেহাল অবস্থা, অপরদিকে তেমনই করোনার প্রকোপে নাজেহাল অবস্থা পাকিস্তানের। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা WHO এর দেওয়া তথ্যে অনুযায়ী জানা যাচ্ছে, সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত ৩ লক্ষ ৩৪ হাজার ৯৮১ জনেরও বেশি মানুষ। তার মধ্যে প্রাণ হারিয়েছেন ১৪ হাজার ৬৫২ জন মানুষ।সারা বিশ্বজুড়ে যখন এমন ভয়াবহ পরিস্থিতিতে পাকিস্তান সরকার কোন উদ্যেগ না নেওয়ায় আতঙ্কিত দেশটির সচেতন মানুষ।

 
1+