৩রা মে জামিন হল না স্বামীর, পরবর্তী শুনানি ১৭ই মে

সুরজিত সরকার : করোনা মোকাবিলায় সারা দেশ জুড়ে চলছে লকডাউন।আর এই লকডাউন পরিস্থিতিতে স্বামী স্ত্রী একসঙ্গে দিন রাত ২৪ ঘন্টা একই ছাদের নীচে সময় কাটাচ্ছেন।যদিও বেশিরভাগ স্ত্রীরা ঘরে অধিকাংশ সময় কাটাতে পারেন তবে সেই অভ্যাস কিন্তু স্বামীদের নেই।তাই অনেক বিবাহিত পুরুষ মনে করছেন, এই লকডাউন পরিস্থিতি তাদের কাছে জেলবন্দির সমান।কবে যে জামিন পাবেন সেই আশায় পথ চেয়ে রয়েছেন তারা।

তবে অনেক স্বামী স্ত্রীর মধ্যে এই সময়েও প্রেমপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে।অবশ্য সবার কপাল তো আর সমান নয়।আর তাই আমাদের প্রতিবেদনের বিষয় সেইসব ভাগ্যবান কাপলদের নিয়ে নয়, বরং হতভাগ্য পুরুষদের নিয়ে। স্ত্রীর সাথে দিন রাত ২৪ঘন্টা একই সাথে থাকার জেরে পারিবারিক অশান্তিতে জড়িয়ে পড়ছেন স্বামীরা।একদিকে আর্থিক বিষয়ে দুশ্চিন্তা, অপরদিকে পারিবারিক অশান্তি দুই মিলে নাজেহাল তারা। তার উপরে রয়েছে বন্দী দশা।

এমতাবস্থায় এসব কিছু থেকে মুক্তির আশায় রয়েছেন এই সব হতভাগ্য স্বামীরা। যদিও প্রধানমন্ত্রী এর আগে ৩রা মে পর্যন্ত লকডাউন ঘোষনা করেছিলেন, তবে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে লকডাউনের সময়সীমা ১৭ই মে পর্যন্ত বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। আর সেই কারনে মুক্তির জন্য আরও দুসপ্তাহ  অপেক্ষা করে থাকতে হবে তাদের।তবে  লকডাউনের মেয়াদ যেভাবে বেড়ে চলেছে তাতে ১৭ই মে তারা জামিন পাবেন কিনা তা নিয়ে সন্দেহ আছে।