দিদি রেডি হোন। মেদিনীপুরের গামছা পরা, পান্তাভাত খাওয়া ছেলেটা আপনার বিরুদ্ধে লড়বে

দিদির সব কিছু ঢপ, শুভেন্দু-ই পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী! এই ভবিষৎবাণী করে বহিষ্কৃত হলেন তৃণমূলের পুর্ব মেদিনীপুরের জেলা সম্পাদক কনিষ্ক পণ্ডা। এদিনই কনিষ্ক পণ্ডাকে বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত নেয় তৃণমূল কংগ্রেস। দলবিরোধী কাজের জেরেই তাঁকে বহিষ্কার করা হল বলে জানিয়েছেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সভাপতি সুব্রত বক্সি।  প্রসঙ্গত, তৃণমূলের যে নেতারা শুভেন্দুর  পাশে দাড়িয়েছিলেন তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন পূর্ব মেদিনীপুরের তৃণমূল জেলা সম্পাদক কনিষ্ক পণ্ডা।

শুধু তাঁর পাশেই দাঁড়ানো নয়, প্রকাশ্যে দলনেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের ব্যাপক সমালোচনা করেছেন তিনি। গেরুয়া রং-এ রাঙিয়ে নিয়েছেন দলিয় পার্টি অফিসকে। পরেছেন গেরুয়া রং এর পাঞ্জাবি! শনিবার কনিষ্ক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণ করে বলেন, “দিদির সব কিছু ঢপ। দিদির স্বাস্থ্যসাথী ঢপ। যখন হাসপাতালে নিয়ে যাবেন তাড়িয়ে দেবে। দিদির কাছে কোনও টাকা নেই। দিদির যা ঋণ আছে ঢেকে দিলেও ঋণ শোধ হবে না। বাংলার মানুষ বুঝে গিয়েছেন শুভেন্দুকেই দরকার।

এখানেই থামেন নি তিনি, তাঁর কথায়, “ ত্যাগ বলতে গেরুয়া। যতদিন না নবান্ন থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরানো হচ্ছে, ততদিন পর্যন্ত এই শুভেন্দু অধিকারী সহায়তা কেন্দ্র চালু থাকবে।”শুভেন্দু ঘেঁষা নেতা পূর্ব মেদিনীপুরের তৃণমূল জেলা সম্পাদক কনিষ্ক আরও বলেন, “দিদি রেডি হোন। মেদিনীপুরের গামছা পরা,পান্তাভাত খাওয়া ছেলেটা আপনার বিরুদ্ধে লড়বে।” পাশাপাশি শুভেন্দু কে নিয়ে এবং দলত্যাগ প্রসঙ্গে তাঁর মন্তব্য, “শুভেন্দু অধিকারী কোনওভাবে পদের লোভী নন। আমাদের কাছে ক্লিয়ার – তুমি তাড়াওনি, আমি যাইনি।” এরপরে  তাৎপর্যপূর্ন বিষয় হল, তাকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়।

হ্যাঁ, আমি অনুদান দিতে ইচ্ছুক

    You May Like this Article
 

You May Like

‘নিজের নাক কেটে পরের যাত্রা ভঙ্গ করেছে বিজেপি কর্মী’, বিস্ফোরক শুভেন্দু
তৃণমূল প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি বলেই হেরেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা: শুভেন্দু
ঠাঁই নেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়, রাজ্য যুব মোর্চার পদ থেকে ইস্তফা সৌমিত্রর
‘মানুষ বোকা নয়’, যশ-শ্রাবন্তী-পায়েলকে নিয়ে সমালোচনায় বিজেপি নেত্রী কাঞ্চনা
মুখে লিউকোপ্লাস্ট লাগিয়ে বসে থাকুন, বিরোধীদের তীব্র কটাক্ষ জ্যোতিপ্রিয় র
আজ থেকে অধিবেশন, ভেবে চিন্তে আপাতত পদ্ম সারিতেই বসবেন মুকুল
হোয়াটসঅ্যাপ এর বার্তা ফাঁস করে ষড়যন্ত্রর প্রমাণ দিলেন দেবাংশু !
‘রাজ ভবনে কেন দেবাঞ্জনের দেহরক্ষী?’রাজ্যপালের সঙ্গে ছবি প্রকাশ করে তোপ তৃণমূলের
‘পরকীয়া’য় বেশি মন রাজ্যপালের, বিতর্কিত দাবি মদন মিত্রের
ভোটার সংখ্যা ৬৭৬, কিন্তু ভোট পড়ল ৭৯৯! নন্দীগ্রামের নথি নিয়ে তোলপাড় রাজ্য