চাকদহ খেদাই তলার মনসা পূজা ও মেলা সম্পর্কে অজানা কিছু তথ্য

নিজস্ব প্রতিবেদন:  শ্রাবণ মাসের সংক্রান্তিতে চাকদাহ বিষ্ণুপুরের পূর্ব দিকে মুদ্রা গাছি গ্রাম এর নিকট খেদাই তলায় খেদাই ঠাকুরের পুজো হয়।বসন্ত স্মৃতি পাঠাগারের সুদীর্ঘকালের সম্পাদক অরুন রায়ের মতে,  খেলাই আসলে অনেকের মতে ক্ষেত্র ঠাকুর বা ক্ষেত্রপাল।  এখানে কোন মূর্তি নেই আছে একটা নিম গাছ।  আর এই নিমগাছ কে কেন্দ্র করেই এখানে পূজার্চনা হয়।  অনেকে আবার এই পূজাকে সাতশলাকির পুজো বলে।

এখানে বর্তমানে একটি ইটের মন্দির গড়ে তোলা হয়েছে।  তার সামনেই পাঠা বলি দেওয়া হয়ে থাকে।  দূরদূরান্ত থেকে মানুষ বলি দেওয়ার জন্য পাঠা নিয়ে আসে।  আর এই জায়গাটি ঘিরেই মেলা বসে। এই মেলায় পার্শ্ববর্তী 25-30 টা গ্রামে উৎপন্ন নানাবিধ কুটির শিল্প ও পণ্য সামগ্রী বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে নিয়ে আসা হয়। 

এর মধ্যে রয়েছে মাছ ও চাষাবাদের সরঞ্জাম।  এছাড়া রয়েছে কাঠ এবং মাটির তৈরি নানা জিনিস, কামারশালায় তৈরি ছোটখাটো হাতিয়ার ইত্যাদি।  অনেক আগে এখানে সাপুড়েরা প্রচুর সংখ্যায় হিংস্র সাপের আমদানি করতো এবং খেলা দেখাতো।  তবে বর্তমানে কেমন সাপুড়ের দেখা মেলে না।  কিন্তু মেলা বড় হচ্ছে। ( তথ্যসূত্র : বিপুল রঞ্জন সরকার মহাশয়ের লিখিত ” চাকদহ রামলাল একাডেমী পট ও পটভূমিকা ” )

 

You may Like this:

চাকদহে করোনা রোগীর সন্ধান! তৎপর প্রশাসন, চলছে থার্মাল স্ক্যানিং
করোনা আবহে রক্তের চাহিদা মেটাতে এগিয়ে এল চাকদহ ধনিচা হাইস্কুল
চুপিসারে মধ্যবিত্তদের ত্রান পৌছে দিচ্ছে অভিযান অ্যাসোসিয়েশন
চাকদহ প্রশাসনের উদ্যেগে কবিগুরুর ১৫৯তম জন্ম শতবার্ষিকী পালন
আজ থেকে মদ্যপায়ী প্রানীদের জন্যে চাকদহেও খুলবে মদের দোকান
করোনা মোকাবিলায় চাকদহ হাসপাতালের পাশে মন্ত্রী রত্না ঘোষ কর
চাকদহ ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকার ছাত্র ছাত্রীদের জন্য সুখবর
ভিন রাজ্যে থাকা চাকদহের অসহায় শ্রমিকদের পাশে সাধন বিশ্বাস
করোনার রেডজোন এলাকা থেকে চাকদহে পালিয়ে এল এক ব্যাক্তি
খাদ্র সামগ্রী দিয়ে গরীবদের পাশে দাঁড়ালো ধনিচা স্কুলের প্রাক্তনীরা