বিজেপিতে ভাঙন ? তৃণমূলের পথে পা বাড়িয়ে ৩ সাংসদ ও ৮ বিধায়ক!

বিজেপির বেশ কয়েকজন বিধায়ক দল ছাড়তে পারেন। তৃণমূলের সাথে যোগ দিতে পারেন। ভোটের ফলাফলের পর থেকে এই জাতীয় জল্পনা রাজ্যের রাজনীতিতে বাড়ছে। এই জল্পনা আরও তীব্র হয়েছে যখন তৃণমূল শিবির দাবি করে যে কেবল ৭-৮ বিধায়কই নয়, বিজেপির ৩ জন সাংসদ জোড়ফুলের সাথে যোগাযোগ রাখছেন। তবে তৃণমূলের সেই দাবিকে প্রকাশ্যে বিজেপি নেতারা উড়িয়ে দিয়েছে।

অবশ্য গেরুয়া শিবিরের ভিতরেও কমপক্ষে ৬ জন বিধায়ককে নিয়ে জোর জল্পনা রয়েছে।প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, অমিত শাহ বাংলায় কমপক্ষে ২০০ টি আসনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছিলেন। পুরো দল এই লক্ষ্যে ঝাঁপিয়ে পড়ে। তবে ২রা মে ফলাফল ঘোষণার পর দেখা যায় বিজেপি শাহের নির্ধারিত টার্গেটের কাছাকাছি পৌছানো তো দূরের কথা ১০০ টি আসনও পায়নি। সব মিলিয়ে ৭৭ আসনে গেরুয়া রথ থেমেছে। এর মধ্যে নিশীথ প্রামানিক ও জগন্নাথ সরকার পদত্যাগ করেছেন। তারা সাংসদ হিসাবেই থাকতে চান। অর্থাৎ বর্তমানে বিজেপির এখন ৭৫ জন বিধায়ক রয়েছে।

এরই মধ্যে তৃণমূলের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ দাবি করেছেন বিজেপির ৩ জন সংসদ সদস্য এবং ৬-৭ বিধায়ক তৃণমূলের সাথে যোগাযোগ করেছেন। সূত্রমতে জানা যাচ্ছে, যে ৩ জন বিজেপি সাংসদ তৃণমূলের সাথে যোগাযোগ রাখছেন তাদের একজন উত্তরবঙ্গ, একজন রাঢ়বঙ্গের এবং আরেক জন দক্ষিণবঙ্গ থেকে। বিজেপির অভ্যন্তরীণ সূত্র থেকে জানা যাচ্ছে, দিনাজপুরের তিন বিধায়ককে নিয়ে দলের অন্দরেই সন্দেহ রয়েছে। নদীয়া থেকে নির্বাচিত দুই বিধায়ক ছাড়াও, রাধবাংয়ের ১ জন এবং দক্ষিণবঙ্গ থেকে ২ জন বিধায়ক নিয়েও চিন্তিত বিজেপি নেতৃত্ব।

হ্যাঁ, আমি অনুদান দিতে ইচ্ছুক

    You May Like this Article
 

You May Like

‘নিজের নাক কেটে পরের যাত্রা ভঙ্গ করেছে বিজেপি কর্মী’, বিস্ফোরক শুভেন্দু
তৃণমূল প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি বলেই হেরেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা: শুভেন্দু
ঠাঁই নেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়, রাজ্য যুব মোর্চার পদ থেকে ইস্তফা সৌমিত্রর
‘মানুষ বোকা নয়’, যশ-শ্রাবন্তী-পায়েলকে নিয়ে সমালোচনায় বিজেপি নেত্রী কাঞ্চনা
মুখে লিউকোপ্লাস্ট লাগিয়ে বসে থাকুন, বিরোধীদের তীব্র কটাক্ষ জ্যোতিপ্রিয় র
আজ থেকে অধিবেশন, ভেবে চিন্তে আপাতত পদ্ম সারিতেই বসবেন মুকুল
হোয়াটসঅ্যাপ এর বার্তা ফাঁস করে ষড়যন্ত্রর প্রমাণ দিলেন দেবাংশু !
‘রাজ ভবনে কেন দেবাঞ্জনের দেহরক্ষী?’রাজ্যপালের সঙ্গে ছবি প্রকাশ করে তোপ তৃণমূলের
‘পরকীয়া’য় বেশি মন রাজ্যপালের, বিতর্কিত দাবি মদন মিত্রের
ভোটার সংখ্যা ৬৭৬, কিন্তু ভোট পড়ল ৭৯৯! নন্দীগ্রামের নথি নিয়ে তোলপাড় রাজ্য