সংসদ পদ থেকে পদত্যাগ করছেন অর্জূন সিং

মানুষকে সুরক্ষা দিতে পারছেন না, সাংসদ পদ ছাড়তে চান জানালেন অর্জুন সিং। তিনি ভাটপারার একচ্ছত্র অধিপতি। তাঁর দাপটেই চলে গোটা এলাকা। তবে ভোটে পরাজয়ের পর বিজেপির সেই দোর্দণ্ডপ্রতাপ নেতা অর্জুন সিং নিজের বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দিতে চাইলেন। কারন হিসেবে দেখিয়েছেন মানুষকে সুরক্ষা দিতে না পারার কারন। ভোটের আগে কার্যত দাপট দেখালেও ভোটের ফলে বিশেষ প্রভাব দেখাতে পারেনি বিজেপি।

বরং বাংলার সব প্রান্তে ফের বিপুল হারে ঘাস্ফুল ফুটেছে। তারপরেই কিছুটা কোনঠাসা ভাটপাড়ার বাহুবলি অর্জুন। প্রসঙ্গত উনিশের লোকসভা নির্বাচনে ব্যারাকপুরে জয়লাভের পরে কার্যত গোটা ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চল জুড়ে তাণ্ডব চালিয়েছিল অর্জুন ও তাঁর দলবল। সেই দাঙ্গা কেড়ে নিয়েছিল অসংখ্য মানুষের জীবন। আর এই সব ঘটনার জন্য বারে বারে অভিযোগের আঙুল উঠেছিল অর্জুন সিংয়ের দিকে। ২১ শে নির্বাচনে ব্যারাকপুর শিল্পাঞ্চলের ৭টি বিধানসভা কেন্দ্রের মধ্যে মাত্র ১টিতে জয়ী হয়েছে বিজেপি। বাকি ৬ টি কেন্দ্রে ফুটেছে ঘাস্ফুল। এমন শোচনীয় হারের অবস্থায় ১৯ নির্বাচনের সেই দাঙ্গা কার্যত বুমেরাং হয়ে ফিরে এসেছে অর্জুনের দিকে। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে ভোট পরবর্তী হিংসা ছড়িয়ে পরেছে। ভাটপাড়া, শ্যামনগর, জগদ্দলের মতো শিল্পাঞ্চল সবসময়েই রাজনৈতিক অশান্তিতে উত্তপ্ত থাকে। ভোট পূর্ববর্তী কিংবা পরবর্তী সময়ে তা আরও বেড়ে যায়। এবারও তার ব্যতিক্রম নয়। সোমবার শ্যামনগরে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে এই রাজনৈতিক সংঘর্ষের মাঝে পড়ে। বিজেপির দাবি, তিনি এক দলীয় কর্মীর মা।

হ্যাঁ, আমি অনুদান দিতে ইচ্ছুক

    You May Like this Article
 

You May Like

‘নিজের নাক কেটে পরের যাত্রা ভঙ্গ করেছে বিজেপি কর্মী’, বিস্ফোরক শুভেন্দু
তৃণমূল প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি বলেই হেরেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা: শুভেন্দু
ঠাঁই নেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায়, রাজ্য যুব মোর্চার পদ থেকে ইস্তফা সৌমিত্রর
‘মানুষ বোকা নয়’, যশ-শ্রাবন্তী-পায়েলকে নিয়ে সমালোচনায় বিজেপি নেত্রী কাঞ্চনা
মুখে লিউকোপ্লাস্ট লাগিয়ে বসে থাকুন, বিরোধীদের তীব্র কটাক্ষ জ্যোতিপ্রিয় র
আজ থেকে অধিবেশন, ভেবে চিন্তে আপাতত পদ্ম সারিতেই বসবেন মুকুল
হোয়াটসঅ্যাপ এর বার্তা ফাঁস করে ষড়যন্ত্রর প্রমাণ দিলেন দেবাংশু !
‘রাজ ভবনে কেন দেবাঞ্জনের দেহরক্ষী?’রাজ্যপালের সঙ্গে ছবি প্রকাশ করে তোপ তৃণমূলের
‘পরকীয়া’য় বেশি মন রাজ্যপালের, বিতর্কিত দাবি মদন মিত্রের
ভোটার সংখ্যা ৬৭৬, কিন্তু ভোট পড়ল ৭৯৯! নন্দীগ্রামের নথি নিয়ে তোলপাড় রাজ্য